KKR vs SRH, IPL 2023: যে সব ভারতীয় ফ্যানরা ফালতু বলেছে, স্লেজিং করেছে, মুখ বন্ধ করেছি- ধুইয়ে দিলেন ব্রুক !!

আগের তিনটি ম্যাচে করেছিল মোট ২৯ রান। তারপরেই তীব্র সমালোচনা হয়েছিল ১৩.২৫ কোটির ব্রুককে নিয়ে। তাকে তীব্রভাবে সোশ্যাল মিডিয়ায় আক্রমণ করা হয়েছিল। ব্রুকের কোন কথাই অজানা নয়। শুক্রবার তিনি ৫৫ বলে অপরাজিত ১০০ রান করে একেবারে সব সমালোচকদের মুখ বন্ধ করে দিলেন। ব্রুক নিন্দুকদের মুখের উপর যোগ্য জবাব দিতে পেরে উচ্ছ্বসিত।

তাকে ঘিরে সমালোচনা সেটা হ্যারি ব্রুক ভালোভাবে নেননি, কলকাতায় নাইট রাইডার্স এর বিরুদ্ধে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের ২৩ রানে জয়ের পর সেটা পরিষ্কার করে দিলে। সেই জয়ে ব্রিটিশ তারকা প্রধান ভূমিকা নিয়েছেন।

ম্যাচের পর ব্রুক পরিষ্কার বলে দেন, ‘নিজের উপর আমি একটু চাপ নিয়ে ফেলেছিলাম। সোশ্যাল মিডিয়াতে আমাকে সকলে ফালতু বলছিল। অনেক ভারতীয় ভক্ত সেখানে আছে, আজ (শুক্রবার) তারা বলবে, এই রাতে দারুন কিছু করেছি আমি। কিন্তু কিছুদিন আগে আমাকে ওরাই স্লেজিং করেছে। অনেক কু কথা বলেছে। আমি খুশি হয়েছি কারণ তাদের মুখ আমি বন্ধ করতে পেরেছি।’

গত চার মাসের মধ্যে চারটি টেস্ট এবং একটি আইপিএল সেঞ্চুরি করে ফেললেন ব্রুক। এর থেকেই পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে, তার পারফরম্যান্স গ্রাফটা কতটা ঊর্ধ্বগামী। ব্রুক কেকেআরের বিরুদ্ধে ওপেন করতে নেমে সেঞ্চুরি হাঁকালেও, বলে দিয়েছিলেন, তিনি যে কোন জায়গায় ব্যাট করতে তৈরি। ব্রুকের দাবি, ‘বেশিরভাগ লোক বলে, টি-টোয়েন্টিতে ওপেন করাটা সেরা ছিল। তবে যেকোনো জায়গায় ব্যাট করতে আমি পছন্দ করি। পাঁচ নম্বরে ব্যাট করে আমার প্রচুর সাফল্য রয়েছে। সেই পজিশনে আমি নিজের নাম একেবারে খোদাই করে দিয়েছি। আমার আগের চারটে টেস্ট সেঞ্চুরিও কম কিছু ছিল না।’

গ্যালারিতে ব্রুকের বান্ধবী ছিলেন। ব্রুক উচ্ছ্বসিত হয়েছেন তার সামনে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে। হ্যারি ব্রুক ইনিংসের বিরতিতে মজা করে বলেছিলেন, ‘এখানে আমার বান্ধবী আছে কিন্তু আমার পরিবারের বাকিরা চলে গিয়েছে, আমি জানতাম তারা চলে যাওয়ার পরই আমি ভালো খেলব। আমি নিশ্চিত আমার জন্য ওরা সকলেই খুব খুশি হবে।’

তবে তিনি তখন বলেছিলেন, স্পিন খেলতে তার কিছুটা সমস্যা হলেও, পেসারদের ক্ষেত্রে তা হয়নি। তিনি দাবি করেছিলেন, ‘আমার স্পিন নিয়ে কিছুটা সমস্যা হচ্ছিল, কিন্তু পাওয়ার প্লেকে আমি সুবিধামতো ব্যবহার করতে চেয়েছিলাম। তাই স্ট্রাইক রোটেট করছিলাম মাঝের ওভার গুলি। এটা একটা দুর্দান্ত উইকেট ছিল।’