“আমরা কিছুই জানতাম না, ওকে দেখতে না পেয়ে অবাক হয়েছিলাম” পন্থের বাদ পড়া নিয়ে বিস্ফোরক তথ্য দিলেন KL রাহুল !!

গতকাল সিরিজের প্রথম একদিনের ম্যাচে ঢাকার শের-ই- বাংলা স্টেডিয়ামে ভারত এবং বাংলাদেশ মুখোমুখি হয়েছিল। মেহদী হাসান মিরাজের দুর্দান্ত ইনিংসের কাছে টিম ইন্ডিয়াকে জয়ের কাছাকাছি এসেও পরাজয় স্বীকার করতে হয়েছে। ভারত চেয়েছিল জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করতে কিন্তু হার জুটেছে কপালে। এই সিরিজের গুরুত্ব অপরিসীম আসন্ন একদিনের ক্রিকেট বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে। সেখানে টিম ইন্ডিয়াকে প্রথম ম্যাচের হার চিন্তায় রাখবে। ভারতীয় দল একের পর এক বিড়ম্বনার মুখে পড়ছে বাংলাদেশ পৌঁছে থেকেই। প্রথমে মহম্মদ শামি চোটের জন্য ছিটকে গিয়েছিলেন। ম্যাচের একদম আগে জানা যায় উইকেট রক্ষক ব্যাটার ঋষভ পন্থ একদিনে সিরিজের বাইরে চলে গিয়েছিলেন পিঠের সমস্যার জন্য। আচমকা ঋষভের বাদ পড়ার বিষয়টি নিয়ে ভারতের সহ-অধিনায়ক কে এল রাহুল জানালেন তাদের কোন ধারনাই ছিল না। উইকেটের পিছনে আহত পন্থের জায়গায় তিনিই দস্তানা হাতেও দাঁড়ালেন।

ভারত জয়ের লক্ষ্যেই নেমেছিল উপমহাদেশীয় প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। বাংলাদেশ অধিনায়ক লিটন দাস টসে জিতে প্রথমে টিম ইন্ডিয়াকে ব্যাট করতে পাঠান। শুরু থেকেই ‘মেন ইন ব্লু’ চাপে ছিল। শিখর ধাওয়ান আউট হয়ে যান 17 বলে 7 রান করে। ব্যর্থতার খাতায় রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলিরাও নাম লেখান। ভারতের ব্যাটিং নক্ষত্র’রা মাথা তুলতে পারেননি শাকিব আল হাসানের বোলিংয়ের সামনে। রোহিত 27 এবং বিরাট 9 রান করে ফিরে যান সাজঘরে। শ্রেয়স আইয়ার আশা জাগিয়ে আউট হন 24 রান করে। ভারতের হয়ে কে এল রাহুল লড়াই করেন। তিনি 70 বলে 73 রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন কঠিন পরিস্থিতিতে। 41.2 ওভারে ভারত অলআউট হয়ে যায় 186 রান করে। শাকিব পাঁচটি উইকেট নেন, এবাদত হোসেনের ঝুলিতে চারটি উইকেট যায়। জবাবে ব্যাট করতে নেমে শান্ত’কে প্রথম বলেই নাজমুল হাসান হারালেও লিটন দাস সামলে নিয়েছিলেন। সঙ্গে শাকিব আল হাসান ছিলেন। ভারতকে ম্যাচে ফেরান তাদের পরপর আউট করে ওয়াশিংটন সুন্দর। এরপর নিয়মিত উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ হারের দোরগোড়ায় এসে দাঁড়িয়েছিল। কিন্তু মেহদী হাসান মিরাজের মনে অন্যরকম ভাবনা ছিল। বাংলাদেশকে শেষ উইকেটে 51 রান তুলতে হতো। সেটাই করে দেখালেন মুস্তাফিজুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে টাইগার্স অলরাউন্ডার। চারটি চার এবং দুটি ছক্কা মেরে 39 বলে 38 রান করে তিনি অপরাজিত থাকেন। মেহদী ভারতের মুখের সামনে থেকে ম্যাচ ছিনিয়ে নিয়ে নায়ক হন। আর কে এল রাহুল তার সহজ ক্যাচ ছেড়ে দিয়ে খলনায়কের তালিকায় নাম লেখালেন।

এক টুইট বার্তায় ম্যাচের দিন সকালে ভারতীয় বোর্ড জানিয়েছিল যে পন্থ একদিনের সিরিজে থাকছে না। দলের সাথে তিনি আবার যোগ দেবেন টেস্ট সিরিজের আগে। বিষয়টি নিয়ে দলের ক্রিকেটাররা সম্পূর্ণ অন্ধকারে ছিলেন। কে এল রাহুল এমনটাই জানাচ্ছেন। ম্যাচ শেষে পন্থের বাদ পড়া নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে এসে তিনি বললেন,“সত্যি বলতে আমি তেমন কিছু জানি না বিষয়টা নিয়ে। আমরা ব্যাপারটা জানতে পারি ড্রেসিংরুমে এসে। ভালো বলতে পারবে মেডিক্যাল টিম। আমরা ঋষভকে সাজঘরে না দেখতে পেয়ে ওর খোঁজ করছিলাম। তখনই জানালাম যে ওকে একদিনের সিরিজ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। ম্যাচ খেলতে হতো কিছুক্ষণের মধ্যেই, তাই সুযোগ ছিল না আর বেশি প্রশ্ন করার।” ঋষভ না থাকায় রাহুলকে দেখা গেল উইকেটের পিছনে দস্তানা হাতে। কি বক্তব্য তা নিয়ে? 28 বর্ষীয় রাহুল বলেন,“একদিনের ম্যাচ বিশেষ গত 6-7 মাসে খেলা হয়নি। তবে তার আগে আমি 2020-2021 মরশুমের একদিনের ক্রিকেটে কিপিং করেছি। ব্যাট করেছি 4-5 নম্বরে। আমায় এই ভূমিকায় খেলার জন্য দল থেকে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছিল। যে ভূমিকায় দল খেলতে বলবে আমি তাতে রাজি আছি।” প্রথম একদিনের ম্যাচে ভারত হেরেছে রাহুলের 73 রানের অনবদ্য ইনিংস থাকার সত্ত্বেও। সেই স্মৃতি মন থেকে মুছে ফেলে আগামী বুধবার টিম ইন্ডিয়া খেলতে নামবে।