প্রাতরাশের টেবিলে মুখোমুখি দুই বাঁহাতি, ২২ বছরের পুরনো ঘায়ে নুন ছেটালেন সৌরভ !!

প্রাক্তন প্রতিপক্ষের সাথে দেখা হয় লন্ডনে প্রাতরাশ সারতে গিয়ে। তার সাথে গল্প করতে করতে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় প্রাতরাশ করেছেন। বাঁহাতি ব্যাটার ছিলেন সেই প্রতিপক্ষও। সমাজ মাধ্যমে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রাক্তন সভাপতি নিজে দুজনের ছবি দিয়েছেন। বর্ডার গাভাস্কার সিরিজ চলছে ভারত-অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে। দু’দেশের ক্রিকেটীয় লড়াইয়ের কথা তো আলোচনা হবেই যদি টেবিলের অপর দিকে জাস্টিন ল্যাঙ্গারের মত প্রাক্তন ক্রিকেটার থাকে। প্রাতরাশ করতে করতে ল্যাঙ্গারের সাথে সৌরভও মজেছেন ক্রিকেটের গল্পে। সমাজ মাধ্যমে ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক দু’জনের ছবি দিয়ে লিখেছেন,“এক দুর্দান্ত বাঁহাতি ব্যাটসম্যান এমসিসি বৈঠকের প্রাতঃরাশের টেবিলে।”

সৌরভ এবং ল্যাঙ্গার বর্ডার গাভাস্কার সিরিজ খেলেছিলেন ২০০১ সাল থেকে ২০০৭ সাল পর্যন্ত। সৌরভের নেতৃত্বে ২০০১ সালের সিরিজ ভারত জিতেছিল। সৌরভ এবং ল্যাঙ্গারের আলোচনায় সেই সিরিজের কথা উঠেছে। সেই সিরিজের কলকাতা টেস্টে সৌরভ রাহুল দ্রাবিড় এবং ভিভিএস লক্ষণের জুটির কথা বলেছেন। লন্ডন থেকে ফিরে জানিয়েছেন ল্যাঙ্গারের সাথে দেখা হওয়ার কথা, একটি লেখায় সৌরভ বর্ডার গাভাস্কার সিরিজের অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন। ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক লিখেছে, “ক্রিকেটের ইতিহাসে এই জুটি শ্রেষ্ঠ জুটি। আমরা কোনও উইকেট না হারিয়ে টেস্টের চতুর্থ দিনে ৩৩৫ রান করেছিলাম। দ্রাবিড় এবং লক্ষণ সারাদিন ব্যাটিং করার পর খুবই ক্লান্ত হয়ে পড়েছিল। ওরা তারপরেও হাল ছাড়েনি। ব্যাট হাতে চালিয়ে গিয়েছে লড়াই।”

সৌরভ আরো লিখেছে, “সেই ম্যাচে অস্ট্রেলিয়া বিশ্বাস করতে পারছিল না যে কী হচ্ছে। গ্লেন ম্যাকগ্রাকে হরভজন সিং যখন এলবিডব্লিউ আউট করেছিল, গোটা ইডেন তখন গর্জনে ফেটে পড়েছিল। ঘটেছিল ক্রিকেটপ্রেমীদের আবেগের বিস্ফোরণ। ভারতীয় ক্রিকেটকে ওই টেস্ট নতুন জীবন দিয়েছিল। বিরল জয় পেয়েছিল আমাদের দল। তেমন জয় এখনো কেউ পায়নি। অস্ট্রেলিয়াকেও হারানো যায়, আমরা প্রমাণ করেছিলাম।”

সৌরভ নিজের ক্রিকেট জীবনের সেরা সিরিজ হিসেবে ২০০১ সালের ভারত-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজকে চিহ্নিত করেছেন। তিনি বললেন,“অধিনায়ক হিসাবে সেই আমাকে অনেক পরিণত করেছিল। যেকোনো পরিস্থিতিতে পৃথিবীর যেকোনো জায়গায় টেস্ট জেতার আত্মবিশ্বাস আমরা পেয়েছিলাম।” বর্ডার গাভাস্কার সিরিজের নানা ঘটনা নিয়ে দুই প্রাক্তন বাঁহাতি ব্যাটার আলোচনা করেছেন। ভারতের সেই জয়ের প্রশংসা করেছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন কোচ। সম্প্রতি সৌরভ এমসিসিতে গিয়েছিলেন লন্ডনে থাকার সময়।