আইপিএল ২০২৪ক্রিকেট নিউজফুটবলক্রিকেট গসিপঅন্যান্য খেলাধুলা

Sunil Chhetri Vande Mataram : স্টেডিয়াম জুড়ে ‘বন্দে মাতরম’ গর্জন, SAFF ফাইনালে আবেগে ভাসলেন সুনীল ছেত্রীরা

WhatsApp Group Join Now গতকাল বেঙ্গালুরুর শ্রী কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে (Sree Kanteerava Stadium) ইতিহাস তৈরী করেছেন সুনীল ছেত্রীরা (Sunil Chhetri)। ফাইনালে শক্তিশালী কুয়েতকে হারিয়ে নবমবার সাফ ...

Published on:

WhatsApp Group Join Now

গতকাল বেঙ্গালুরুর শ্রী কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে (Sree Kanteerava Stadium) ইতিহাস তৈরী করেছেন সুনীল ছেত্রীরা (Sunil Chhetri)। ফাইনালে শক্তিশালী কুয়েতকে হারিয়ে নবমবার সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের (SAFF Championship) খেতাব দখল করেছেন ঈগর স্টিম্যাকের (Igor Stimac) ছেলেরা। গুরুত্বপূর্ণ ফাইনালে প্রথমার্ধে পিছিয়ে পরেও ছাঙতের গোলে সমতায় ফেরে দল। এরপর ম্যাচ গড়িয়েছিল টাইব্রেকার অবধি। সেখানে গুরপ্রীত সিং সান্ধুর (Gurpreet Singh Sandhu) গ্লাভসে ভর করে জয় নিশ্চিত করে সুনীল ছেত্রীর ভারত।

WhatsApp Group Join Now

টাইব্রেকারে সুনীলের দীর্ঘদিনের সতীর্থ উদান্তা সিং পেনাল্টি মিস করলেও মহেশ, সন্দেশ, ছাঙতে, শুভাশিস এবং সুনীল নিজে স্নায়ুর চাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছিলেন। কুয়েতের মহম্মদ দাহাম ও খালেদ ইব্রাহিম হাজিয়ার পেনাল্টি বাঁচিয়ে টাইব্রেকারে নায়ক হয়ে যান গুরপ্রীত। পরপর সেমিফাইনালে ও ফাইনালে কঠিন প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে টাইব্রেকারে ভারতের স্নায়ুর চাপ নিয়ন্ত্রণে রাখার বিষয়টা মনে ধরেছে সমর্থকদের।

সেইসঙ্গে নজরে পড়ার মতো ব্যাপার ছিল বেঙ্গালুরুর কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে দর্শকদের সাপোর্ট।  কুয়েতের শাবাইব আল খালীদি গোল করে ভারতকে পেছনে ফেলে দিয়েছিল। সাময়িকভাবে গ্যালারিতে নেমে এসেছিল শ্মশানের নীরবতা। কিন্তু তাদের ফর্মে ফিরতে সময় লাগেনি।

ছাঙতের সমতায় ফেরানোর গোলটি ছিল ভারতীয় ফুটবলারদের তৈরি করা একটি অসাধারণ মুভের ফসল। কান্তিরাভার গ্যালারিতে দর্শকসংখ্যা কখনোই যুবভারতীর সঙ্গে তুলনীয় নয়। আবেগের বিষয়েও হয়তো তারা পিছিয়েই থাকবেন কলকাতার ভক্তদের তুলনায়। কিন্তু ভারত সমতায় ফেরার পর যেন আকাশ ফেটে পড়ছিল দর্শকদের উচ্ছাসে। শেষপর্যন্ত ম্যাচ জয়ের পর স্টেডিয়ামের সকলের একসঙ্গে গেয়ে ওঠা বন্দে মাতরমের সুর ছিল কালকে স্টেডিয়ামের সবচেয়ে সুন্দর মুহূর্ত। দর্শকদের সাথে গলা মিলিয়েছিলেন ফুটবলাররাও।

গ্রূপের শেষ ম্যাচে লাল কার্ড দেখে সেমিফাইনালে ও ফাইনালে দলের সাথে ছিলেন না প্রধান কোচ ঈগর স্টিম্যাক। তার কাছে এই জয় ছিল কঠিন পরিশ্রমের ফসল। ভারত আগামী এশিয়ান কাপের জন্য সঠিক পথে প্রস্তুতি শুরু করেছে, সেই ব্যাপারে তিনি নিশ্চিত।

About Author
2.