রোহিত-রাহুলের ওপর চটে লাল হার্দিক! বিষ্ফোরক রিপোর্টে ভারতীয় দলের কোন্দল প্রকাশ্যে

ভারতের টপ অর্ডার চলতি বিশ্বকাপে শোচনীয় ভাবে ব্যর্থ হয়েছে। ভারতের টপ অর্ডার গ্রুপ পর্বে বারবার ব্যর্থ হলেও উপযুক্ত বিকল্প ভেবে রাখা হয়নি নকআউটের জন্য। ভারতের টপ অর্ডারের ব্যর্থতায় দুই ওপেনার কেএল রাহুল ও রোহিত শর্মার নাম বারবার উঠে এসেছে। পাওয়ার প্লের ফায়দা নিতে দুজনে ব্যর্থ হয়েছেন। ইংল্যান্ডের হাতে পরাজয়ের দিনে পাওয়ার প্লেতে ভারত ৩৪ রান তুলেছিল। হার্দিক পান্ডিয়া শেষ দিকে ঝড় তুলে ৩৩ বলে ৬৩ রান করলেও ঘোরতর সংশয় রয়েছে ভারত কতদূর টানতে পারতো তা নিয়ে। শুধু ইংল্যান্ড ম্যাচই নয় ভারতীয় টপ অর্ডার গ্রুপ পর্বের প্রত্যেক ম্যাচেই পাওয়ার প্লের ওভারে খাপ খুলতে পারেনি।

পরিসংখ্যান বলছে, পাওয়ার প্লের ওভারে টেস্ট ঘোরানোর ব্যাটিং চালিয়ে গিয়েছে কেএল রাহুল (১২০.৭৫ স্ট্রাইক রেট), রোহিত শর্মা (১০৬.৪২ স্ট্রাইক রেট) এবং এমনকি কোহলিও (১৩৬.৪০)। ভারত পাওয়ার প্লেতে পার্থে পেস সহায়ক উইকেটে ৩৩/২ তুলেছিল। ভারত পাকিস্তান ম্যাচে মেলবোর্নে প্রথম ছয় ওভারে ভারতের স্কোরবোর্ডে উঠেছিল মাত্র ৩১/৩। রোহিত-রাহুল-কোহলিরা অ্যাডিলেড ওভালের ব্যাটিং পিচে মাত্র ৩৮/১ তুলতে পেরেছিল।

ভারত বারবার পাওয়ার প্লেতে ধসে পড়াতেই টিম ইন্ডিয়ার ভাগ্য নির্ধারিত হয়ে গিয়েছে। ক্রিকেট মহল এমনটাই মনে করছে। ঘটনা হলো ভারতের টপ অর্ডারের টপ থ্রি শুধু ক্রিকেট মহলের ক্ষোভের মুখেই পড়েননি। স্পোর্টস তক- এর প্রতিবেদনে বলেছে, মিডিল অর্ডারে ব্যাট করেন ভারতের এক সিনিয়র তারকা যিনি বারবার অসন্তোষ প্রকাশ করছেন রোহিত- রাহুলদের স্লো ব্যাটিংয়ে।

সেই প্রতিবেদনে বলেছে, “টিম ইন্ডিয়ার মিডল অর্ডারের এক তারকা বারবার টপ অর্ডারের ব্যাটসম্যানদের কাছে অনুযোগ করেছেন, তোমরা শুরুতে ভীষণ মন্থর ব্যাটিং করছ। এতে মাঝের ওভারে ভয়ঙ্কর চাপ চলে আসছে মিডল অর্ডারের ওপর। আর কতবার আমরা দলকে বাঁচাব?স্পোর্টস তক-এ এই সিনিয়র তারকার নাম জানানো না হলেও নেটিজেনদের ধারণা ইনি হার্দিক পান্ডিয়া।”

ইতিমধ্যেই যাকে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ক্যাপ্টেন করার দাবি উঠে গিয়েছে। ভারতের এই পাওয়ার প্লেতে ক্রিকেট মহলকে অবাক করেছে স্লো গতিতে ব্যাটিং। টিম ইন্ডিয়া পুরনো ঘটনার ব্যাটিং করছে বিশেষজ্ঞ নাসের হুসেন তো বলেই দিয়েছেন। গাভাস্কারও একই অভিযোগ করেছেন। বিস্ফোরকভাবে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, জাতীয় দলের একাধিক সিনিয়র তারকা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর অবসর নিলে অবাক হওয়ার মতো কিছু থাকবে না।

Back to top button