আইপিএল ২০২৪ক্রিকেট নিউজফুটবলক্রিকেট গসিপঅন্যান্য খেলাধুলা

‘হয়তো খুশি করতে পারিনি…’, সুযোগ না পেয়ে BCCI-কে বার্তা হনুমা বিহারির !!

WhatsApp Group Join Now ২০২০-২১ মরশুমে ভারতের বর্ডার গাভাস্কার ট্রফি জয়ের পিছনে সবথেকে বড় নাম হল হনুমা বিহারি। সিডনিতে তৃতীয় টেস্ট ম্যাচে ১৬১ বলে তিনি ...

Published on:

WhatsApp Group Join Now

২০২০-২১ মরশুমে ভারতের বর্ডার গাভাস্কার ট্রফি জয়ের পিছনে সবথেকে বড় নাম হল হনুমা বিহারি। সিডনিতে তৃতীয় টেস্ট ম্যাচে ১৬১ বলে তিনি অপরাজিত ২৩ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচ বাঁচিয়েছিলেন। তিনি সেই ম্যাচে হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়েছিলেন, কিন্তু তারপরেও খেলে গিয়েছিলেন। নিজের শরীর নয়, সেই সময় তার কাছে ম্যাচ বাঁচানো বড় হয়ে গিয়েছিল। গত মরশুমে রঞ্জি ট্রফিতে অন্ধপ্রদেশের হয়ে ভাঙ্গা হাত নিয়ে তিনি দুটো ইনিংস ব্যাট করেছিলেন। একাধিক চার মেরে ছিলেন তিনি। কিন্তু তার এই মরণ ইনিংস কোন দাম পায়নি। জাতীয় দলে বরাবরই তিনি বিকল্প হিসেবে থেকে গিয়েছেন।

WhatsApp Group Join Now

বর্তমানে তিনি দলীপ ট্রফি খেলছেন। দক্ষিণাঞ্চলকে তিনি ফাইনালে তুলেছেন। তার ভূমিকা অনেক বেশি ছিল। এই পরিস্থিতিতে তিনি জানিয়েছেন যে জাতীয় দল থেকে বাদ পড়ার পরেও তিনি নিজেকে কি করে মানসিক দিক থেকে চাঙ্গা রাখেন। বারবার ব্রাত্য হয়েও তিনি কী করে ভালো খেলার রসদ পান।

হনুমা বিহারি টেস্টে ২৯ ইনিংসে ৮৩৯ রান করেছেন। তার নামে পাঁচটি হাফ সেঞ্চুরি ও একটি সেঞ্চুরি রয়েছে। ২০১৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে তিনি প্রথম টেস্ট সেঞ্চুরি করেছেন। বরাবর ভালো খেললেও জাতীয় দলে তাকে ব্রাত্য করা হয়েছে। তবে তিনি জানেনই না যে কেন তিনি বাদ পড়েন। আগের মতই বিসিসিআইয়ের তরফে সাংবাদিক বৈঠক করে কারণ জানানো হয় না। তবে চারিদিকে নেগেটিভ থাকার পরেও অজিঙ্কা রাহানেকে দেখে তিনি অনুপ্রাণিত হচ্ছেন।

রাহানে এবারের আইপিএল থেকে জাতীয় দলে কামব্যাক করেছেন। এর সাথে টেস্টে সহ অধিনায়কের আর্মব্যান্ডও ফিরে পেয়েছেন। এটাই হনুমাকে চাঙ্গা রাখছে। হনুমা একটি সাক্ষাৎকারে বললেন, ‘সব সময় কাম ব্যাক করা কঠিন, একবার বাদ পড়ে গেলে তো আর কোন কথাই নেই। মানসিক দিক থেকে এটা সমস্যা তৈরি করে। মানসিক দিক থেকে সমস্যা হয়। গত মরশুম থেকে আমি এই সমস্যার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। আমি সব কিছুকে সরিয়ে এই মরশুমে ব্যাটিংয়ে জোর দিতে চাই, নিজের সেরাটা দিতে চাই এবং কী করেছি গত ১২ বছর ধরে সেটাই করতে চাই। সেটা থেকে যদি সুযোগ পাওয়ার হয় তাহলে পাবো নয় তো পাবো না। নিজের রাজ্য বা জোনের হয়ে আমি সেরাটা দেব।’

নির্বাচকদের নাম না নিয়ে তিনি জানিয়েছেন, যখনই তিনি সুযোগ পেয়েছেন তখনই নিজের সেরাটা দিয়েছেন তবে নির্বাচকদের খুশি করার জন্য সেটা হয়তো পর্যাপ্ত ছিল না। তিনি বললেন, ‘মনে করি কামব্যাকের সুযোগ আছে অবসর পর্যন্ত। আমার বয়স এখন ২৯ বছর এবং ৩৫ বছর বয়সে অজিঙ্কা রাহানে কাম ব্যাক করেছে।’আমি মনে করি যে টেস্টে দেশের হয়ে অনেক কিছু দিতে পারব।’

About Author
2.