৩ ভারতীয় ওপেনার ব্যাটসম্যান যারা একটি ওয়ানডে ম্যাচে ৫টি উইকেট নিয়েছিলেন !!

কমপক্ষে একজন অলরাউন্ডার আছেন প্রতিটি ক্রিকেট দলে। এছাড়া থাকেন পার্টটাইম বোলাররা যারা কখনো কখনো দলকে বল হাতে সাফল্য দিয়েছেন। এর পাশাপাশি তারা প্রশংসিত হন একজন দুর্দান্ত ব্যাটসম্যান হিসেবে। এমন অনেক ব্যাটসম্যান ভারতীয় ক্রিকেটে ছিলেন তাদের কাজ ছিল বড় স্কোর করা। তবে পার্টটাইমার আর হিসাবে আরো সহজ করে দিয়েছিলেন বোলারদের কাজ। তিন ভারতীয় ওপেনারের কথা এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যারা ৫টি উইকেট নিয়েছিলেন একটি ওয়ানডে ম্যাচে।

১. কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্ত:

একজন আক্রমণাত্মক ওপেনার হিসেবে প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্ত পরিচিত ছিলেন। ১৯৮৩ সালের বিশ্বকাপের ফাইনালে সর্বোচ্চ স্কোরার ছিলেন ৩৮ রান করে। যাইহোক একটি ওয়ানডে ম্যাচে একজন ওপেনার হওয়ার সত্বেও পাঁচটি উইকেট নেন। ১৯৮৮ সালে একটি ওয়ানডে ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথমে বোলিং করে পাঁচ উইকেট নিয়েছিলেন ২৭ রান দিয়ে ও ৭০ রান করেন ব্যাট হাতে। ভারতীয় দল ৪ উইকেটে ওই ম্যাচটি জয়লাভ করে এবং সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন তিনি।

২. শচীন টেন্ডুলকার:

একজন দুর্দান্ত ব্যাটসম্যান হওয়ার পাশাপাশি শচীন টেন্ডুলকার স্পিনার হিসাবেও কার্যকরী ছিলেন। পাঁচ উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেছেন তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারে মোট দুবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারী শচীন টেন্ডুলকার। প্রথমে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ১৯৯৮ সালে ৫ উইকেট নেন ৩২ রান দিয়ে। এরপর পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ২০০৫ সালে ৫টি উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেছেন। যদিও ব্যাট হাতে এই ম্যাচে তিনি খুব একটা ভালো পারফর্ম করতে পারেননি।

৩. সৌরভ গাঙ্গুলী:

১৯৯৭ সালে প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ৫টি উইকেট নিয়েছিলেন মাত্র ১৬ রান দিয়ে একটি ওয়ানডে ম্যাচে। ভারতীয় দল এই ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ১৮২/৬ রান তোলে নির্ধারিত ৫০ ওভারে। পাকিস্তান দল জবাবে ব্যাট করতে নেমে অলআউট হয় ১৪৮ রানে। সৌরভ গাঙ্গুলী ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার পেয়েছিলেন তার দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের কারণে। এছাড়া সৌরভ গাঙ্গুলীর নামে আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ক্রিকেটে মোট ১০০টি উইকেট আছে।

Back to top button